ঢাকা ০১:৫৫ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

শিরোপা জয় করলো লাইপজিগ

আমার প্রাণের বাংলাদেশ ডেস্ক :
  • আপডেট সময় : ০৯:৫৫:৪১ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৩ অগাস্ট ২০২৩ ৯১ বার পঠিত

বায়ার্ন মিউনিখে তার যোগ দেওয়া নিয়ে কত নাটকীয়তা! শেষ পর্যন্ত হ্যারি কেইন ঠিকই নাম লেখালেন জার্মান ক্লাবটিতে। আনুষ্ঠানিক চুক্তির কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে অভিষেক ম্যাচ খেলতে নামলেও ইংল্যান্ড অধিনায়কের সঙ্গী হয়েছে হতাশা। জার্মান সুপার কাপে তাদের ৩-০ গোলে হারিয়ে হ্যারি কেইনের অভিষেকটা ম্লান করে শিরোপা ঘরে তুলেছে আরবি লাইপজিগ। ৮৬ মিলিয়ন পাউন্ডে টটেনহাম থেকে বায়ার্নে যোগ দিয়ে কেইন হয়তো শীর্ষ পর্যায়ের ক্লাব ফুটবলে প্রথম শিরোপা জয়ের স্বপ্নে বিভোর ছিলেন। অ্যালিয়াঞ্জ অ্যারেনায় বদলি হয়ে মাঠেও নামেন ৬৪ মিনিটে। কেইনকে পেয়ে উল্লসিত ছিল পুরো গ্যালারি। কিন্তু অভিষেক ম্যাচে সেভাবে আলো ছড়াতে পারেননি এই স্ট্রাইকার। তার অভিষেকের দিনে আলো ছড়িয়েছেন লাইপজিগ তারকা দানি ওলমো। করেছেন হ্যাটট্রিক। প্রথমটি করেছেন ম্যাচের তৃতীয় মিনিটে। সেজন্য ভুল অবশ্য বায়ার্নের। একটি ক্রস ক্লিয়ার করতে ব্যর্থ হলে জাল কাঁপান ওলমো। দ্বিতীয়টি করেছেন ৪৪ মিনিটে। ৬৮ মিনিটে পেনাল্টি থেকে করেছেন হ্যাটট্রিক। টটেনহামের হয়ে রেকর্ড গোল স্কোরার ছিলেন কেইন। করেছেন ২৮০ গোল। তাছাড়া ইংল্যান্ডের হয়ে করেছেন ৫৮টি। তবে তার সবচেয়ে বড় হতাশাটি হলো গোলের রেকর্ড গড়লেও কোনো শিরোপা জিততে পারেননি। এটা অবশ্য কিছুটা চমক জাগানিয়া ছিল যে, আনুষ্ঠানিক ঘোষণার পর পর খেলার সুযোগও পেয়ে গেছেন একই দিন।

ট্যাগস :

শিরোপা জয় করলো লাইপজিগ

আপডেট সময় : ০৯:৫৫:৪১ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৩ অগাস্ট ২০২৩

বায়ার্ন মিউনিখে তার যোগ দেওয়া নিয়ে কত নাটকীয়তা! শেষ পর্যন্ত হ্যারি কেইন ঠিকই নাম লেখালেন জার্মান ক্লাবটিতে। আনুষ্ঠানিক চুক্তির কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে অভিষেক ম্যাচ খেলতে নামলেও ইংল্যান্ড অধিনায়কের সঙ্গী হয়েছে হতাশা। জার্মান সুপার কাপে তাদের ৩-০ গোলে হারিয়ে হ্যারি কেইনের অভিষেকটা ম্লান করে শিরোপা ঘরে তুলেছে আরবি লাইপজিগ। ৮৬ মিলিয়ন পাউন্ডে টটেনহাম থেকে বায়ার্নে যোগ দিয়ে কেইন হয়তো শীর্ষ পর্যায়ের ক্লাব ফুটবলে প্রথম শিরোপা জয়ের স্বপ্নে বিভোর ছিলেন। অ্যালিয়াঞ্জ অ্যারেনায় বদলি হয়ে মাঠেও নামেন ৬৪ মিনিটে। কেইনকে পেয়ে উল্লসিত ছিল পুরো গ্যালারি। কিন্তু অভিষেক ম্যাচে সেভাবে আলো ছড়াতে পারেননি এই স্ট্রাইকার। তার অভিষেকের দিনে আলো ছড়িয়েছেন লাইপজিগ তারকা দানি ওলমো। করেছেন হ্যাটট্রিক। প্রথমটি করেছেন ম্যাচের তৃতীয় মিনিটে। সেজন্য ভুল অবশ্য বায়ার্নের। একটি ক্রস ক্লিয়ার করতে ব্যর্থ হলে জাল কাঁপান ওলমো। দ্বিতীয়টি করেছেন ৪৪ মিনিটে। ৬৮ মিনিটে পেনাল্টি থেকে করেছেন হ্যাটট্রিক। টটেনহামের হয়ে রেকর্ড গোল স্কোরার ছিলেন কেইন। করেছেন ২৮০ গোল। তাছাড়া ইংল্যান্ডের হয়ে করেছেন ৫৮টি। তবে তার সবচেয়ে বড় হতাশাটি হলো গোলের রেকর্ড গড়লেও কোনো শিরোপা জিততে পারেননি। এটা অবশ্য কিছুটা চমক জাগানিয়া ছিল যে, আনুষ্ঠানিক ঘোষণার পর পর খেলার সুযোগও পেয়ে গেছেন একই দিন।